Pradhan Mantri Kisaan Maandhan | প্রধানমন্ত্রী কিষান মন-ধন যোজনা | प्रधानमंत्री किसान मान-धन योजना (PMKMY) কৃষকরা পাবেন ৩,০০০ টাকা পেনশন

ভারত সরকার ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের তাদের বৃদ্ধ বয়সে পৌঁছে যাওয়ার ( 60 Years ) পরে সুরক্ষা জোগানোর জন্য একটি অবদানমূলক পেনশন প্রকল্প চালু করেছে | কৃষকের বয়স 60 বছর হলে প্রতি মাসে 3000 টাকা পেনশন পাবেন | এই প্রকল্পের সূচনা হয় 9 আগস্ট 2019.

এই প্রকল্পে ( PMKMY ) সারা ভারতবর্ষে পাঁচ কোটিরও বেশি কিছু উপকৃত হবেন |

প্রধানমন্ত্রী কিষাণ মন-ধন যোজনা (PMKMY) 9 ই আগস্ট 2019 থেকে নিবন্ধকরণ শুরু হয়েছে। সরকার সাধারণ বাজেটে এই প্রকল্পটি ঘোষণা করেছিল। এই প্রকল্পের আওতায় জড়িত কৃষকরা 60 বছর বয়স শেষ করে প্রতিমাসে ৩,০০০ টাকা পেনশন পাবেন।

কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী কিষাণ মন-ধন যোজনা (PMKMY) প্রকল্প চালু করেছিলেন।

প্রকল্পের শর্তাবলী

  • ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষক যার জমির পরিমাণ 2 হেক্টরের কম তারা আবেদন করতে পারবেন
  • 18 থেকে 40 বছরের মধ্যে বয়স হতে হবে নাম নথিভুক্ত করার জন্য ( যার সময় কাল ধরা হবে ওই বছরের 1st আগস্ট )
  • নাম নথিভুক্ত করার পর থেকে 60 বছর বয়স পর্যন্ত আপনাকে প্রতিমাসে কিস্তির টাকা জমা করতে হবে
  • সেই টাকা আপনার সরাসরি ব্যাঙ্ক একাউন্ট থেকে কেটে নেওয়া হবে
  • আপনি যত টাকা এই প্রকল্পে জমা করবেন সরকার ঠিক তত টাকা আপনার এই প্রকল্পের জন্য জমা করবে
  • প্রকল্প চালু করার পর কোন মাসে টাকা জমা করতে না পারলে পরের মাসে আপনাকে সেই টাকা সুদ সমেত জমা করতে হবে
  • কয়েক বছর চালানোর পর আপনি এই প্রকল্প বন্ধ করতে চাইলে আবেদন করতে পারেন যখন আপনি আবেদন করবেন তখন ব্যাংকের সেভিংস একাউন্ট এর সুদের হারে আপনাকে সেই টাকা ফিরিয়ে দেওয়া হবে
  • প্রকল্পে অন্তর্ভুক্ত হওয়ার পর কোন কৃষকের মৃত্যু ঘটলে তখন তার নমিনি বা ফ্যামিলি মেম্বাররা এই প্রকল্প চালিয়ে যেতে পারে অথবা সেখানেই বন্ধ করতে পারে | বন্ধ করলে সুদ সমেত টাকা নমিনি কে ফিরিয়ে দেওয়া হবে
  • 60 বছর বয়সের পর কৃষকের মৃত্যু ঘটলে তার নমিনি অর্থাৎ তার স্ত্রী এই পেনশন এর অর্ধেক শতাংশ টাকা অর্থাৎ 1500 টাকা প্রতি মাসে পাবে

18 থেকে 40 বছর বয়সের মধ্যে কোন বয়সে কত টাকা প্রিমিয়াম আপনাকে জমা করতে হবে

এই প্রকল্প সম্বন্ধে বিস্তারিত জানুন –

কোথায় কিভাবে আবেদন করবেন –

আপনার কাছাকাছি কমন সার্ভিস সেন্টার ( CSC ) থেকে এই যোজনায় আবেদন করা যাবে অনলাইনে | সম্পূর্ণ ফ্রিতে সেখানে আপনি আবেদন করতে পারবেন |

PMKMY online application link click here

আপনার কাছাকাছি কোথায় কমন সার্ভিস সেন্টার রয়েছে Click Here

আবেদন করার জন্য কি কি নথি পত্রের প্রয়োজন –

  1. আবেদনকারীর আধার কার্ড থাকতে হবে
  2. আবেদনকারীর ব্যাংক একাউন্ট থাকতে হবে | যে ব্যাংক থেকে আপনার সেই প্রিমিয়ামের টাকা কাটা হবে
  3. মোবাইল নাম্বার অবশ্যই থাকতে হবে
  4. নমিনির নাম, বয়স এবং তার সাথে সম্পর্ক কি রয়েছে সমস্ত বিস্তারিত তথ্য জানাতে হবে
লাইফ ইন্স্যুরেন্স কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়া (LIC) পেনশন তহবিল ব্যবস্থাপক এবং পেনশন পে-আউটের জন্য দায়বদ্ধ হবে | PMKMY জন্য, আপনি কৃষক কল সেন্টারগুলিতে 1800-180-1551 নম্বরে কল করে তথ্য পেতে পারেন। 
১৮ থেকে ৪০ বছর বয়সের মধ্যে 2 হেক্টর জমিতে আবাদযোগ্য জমির মালিক সকল ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষক, যার নাম 01.08.2019-তে রাজ্য / কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির জমি রেকর্ডে উপস্থিত রয়েছে তারা এই প্রকল্পের আওতায় সুবিধা পাওয়ার যোগ্য। 

এগুলির বাইরে, নিম্নলিখিত সুবিধাগুলি পাওয়ার জন্য অযোগ্য:-
1. জাতীয় পেনশন প্রকল্প (এনপিএস), কর্মীদের ‘রাজ্য বীমা কর্পোরেশন পরিকল্পনা, কর্মচারী’ তহবিল সংস্থা পরিকল্পনা ইত্যাদি অন্য কোনও স্ট্যাচুরির সামাজিক সুরক্ষা স্কিমের আওতাভুক্ত এসএমএফগুলি
2. শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রক দ্বারা পরিচালিত প্রধানমন্ত্রী শ্রম যোগী মন ধন যোজনা (প্রধানমন্ত্রী-এসওয়াইএম) -র পক্ষে বেছে নেওয়া কৃষকরা।
3. শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রনালয় কর্তৃক পরিচালিত প্রধানমন্ত্রীর লঘু বৈপারি মান-ধরণের যোজনা (প্রধানমন্ত্রী-এলভিএম) -র পক্ষে বেছে নেওয়া কৃষকরা।
    উচ্চতর অর্থনৈতিক মর্যাদায় নিম্নলিখিত শ্রেণির সুবিধাভোগী এই প্রকল্পের আওতায় সুবিধা পাওয়ার যোগ্য হবে না:

   A. সমস্ত প্রাতিষ্ঠানিক জমিধারীরা
   B. সংবিধানের পদের সাবেক ও বর্তমান ধারকগণ
   C. প্রাক্তন ও বর্তমান মন্ত্রী / রাজ্য মন্ত্রীরা এবং লোকসভা / রাজ্যসভা / রাজ্য বিধানসভা / রাজ্য বিধান পরিষদগুলির সাবেক / বর্তমান সদস্য, পৌর কর্পোরেশনের প্রাক্তন ও বর্তমান মেয়র, জেলা পঞ্চায়েতের প্রাক্তন ও বর্তমান সভাপতিত্বকারীরা।
  D.  কেন্দ্রীয় / রাজ্য সরকার মন্ত্রনালয় / অফিস / বিভাগ এবং বিভাগের ক্ষেত্র ইউনিটসমূহের কেন্দ্রীয় বা রাজ্য পিএসই এবং সংযুক্ত অফিস / স্বায়ত্তশাসিত সংস্থার সরকারী বা অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও কর্মচারী পাশাপাশি স্থানীয় সংস্থার নিয়মিত কর্মচারী (মাল্টি টাস্কিং স্টাফ / চতুর্থ শ্রেণি বাদে) / গ্রুপ ডি কর্মীরা)
  E. সর্বশেষ মূল্যায়নের বছরে যে সমস্ত ব্যক্তি আয়কর প্রদান করেছিলেন
  F.  চিকিৎসক, প্রকৌশলী, আইনজীবি, চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্টস এবং আর্কিটেক্টস এর মতো পেশাদাররা পেশাদার সংস্থাগুলির সাথে নিবন্ধিত এবং অনুশীলনের মাধ্যমে পেশা চালিয়ে যান।

প্রধানমন্ত্রী শ্রমযোগী মান-ধন যোজনা সম্বন্ধে বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*