Krishak Bandhu From Download & Fill up

পশ্চিমবঙ্গের নতুন প্রকল্প কৃষকদের জন্য “কৃষক বন্ধু” প্রকল্প | কৃষক বন্ধুর ফ্রম আপনি কিভাবে ফিলাপ করবেন এবং সঙ্গে কি কি ডকুমেন্ট দেবেন |

পশ্চিমবঙ্গ সরকার কৃষক এর পাশে দাঁড়াবার জন্য কৃষকদেরকে সাহায্য করতে চলেছে,কৃষক বন্ধু প্রকল্পের মাধ্যমে |এই প্রকল্পের মাধ্যমে-

  • 18 থেকে 60 বছর বয়সের কোনো কৃষকের যদি মৃত্যু হয় তাহলে সরকার সেই কৃষক পরিবারকে দু লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দেবে |
  • সমস্ত কৃষককে তার চাষবাসের খরচের জন্য প্রতি একর জমিতে 5 হাজার টাকা করে বছরে দুটি ভাগে সরকার দেবেন (রবি শস্য চাষের শুরুতে 2.5 হাজার টাকা এবং খারিফ শস্য চাষের শুরুতে 2.5 হাজার টাকা )
  • যে সমস্ত কৃষকের এক একর এর কম জমি আছে তারাও বছরে 2 হাজার টাকা পাবেন
    (রবি শস্য চাষের শুরুতে 1 হাজার টাকা এবং খারিফ শস্য চাষের শুরুতে 1 হাজার টাকা )

কৃষক বন্ধুর ফ্রম আপনার স্থানীয় বিডিও অফিসে অথবা কৃষি আধিকারিক অফিসে পেয়ে যাবেন


কৃষক বন্ধু ফ্রম নমুনা নিম্নরূপ
– [ Download Krishak Bandhu Application Form PDF Click Here ]

“কৃষকবন্ধু” স্ব-ঘোষণাপত্র ফর্ম ডাউনলোড করুন / Krishak Bandhu self-declaration form Download Click Here

দুর্ঘটনার কারণে কৃষকের মৃত্যু হলে [ ১৮ – ৬০ বছর বয়স ] পশ্চিমবঙ্গ সরকার পরিবারকে দেবে ২ লক্ষ টাকা কিভাবে আবেদন করবেন বিস্তারিত জানুন Click Here

প্রধানমন্ত্রী কিষান সম্মান নিধি যোজনা [ PM-Kisan ] সম্বন্ধে বিস্তারিত জানুন Click Here

ফরম ফিলাপ করার পর যে সমস্ত প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট গুলো আপনাকে সাথে দিতে হবে সেগুলো নিম্নরূপ –

  • ভোটার কার্ডের জেরক্স কপি ( নিজের সহি করা )
  • সাম্প্রতিক চর্চা ( নিজের সহি করা )
  • ব্যাংকের পাস বইয়ের প্রথম পাতার জেরক্স ( যেখানে আপনার অ্যাকাউন্ট নাম্বার এবং আইএফএসসি কোড অবশ্যই থাকবে ) ( নিজের সহি করা )
  • কে.সি.সি (কিষান ক্রেডিট কার্ড ) থাকলে প্রথম পাতার জেরক্স ( নিজের সহি করা )

*ভাগচাষী হলে জমির মালিকের সঙ্গে এগ্রিমেন্ট কপি অবশ্যই লাগবে |

বর্তমানে পশ্চিমবঙ্গের সমস্ত কৃষক “কৃষকবন্ধু” প্রকল্পের সুবিধা পাবেন এ কথা ঘোষণা করেছেন মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে যাদের নামে জমি জায়গার পর্চা নেই বা পৈতৃক সম্পত্তি চাষবাস করেন তারা কৃষক বন্ধু ফর্ম ফিলাপের সাথে স্ব-ঘোষণাপত্র ফর্ম ফিলাপ করে আবেদন করতে পারবেন।

কৃষক বন্ধু প্রকল্পের আবেদনপত্র পূরণের নির্দেশাবলী –

  • বাংলা নামের বানান পশ্চাতে আপনার যে নাম আছে সেই নাম লিখবেন.
  • মোবাইলে সরাসরি SMS এবং অন্যান্য তথ্য পাওয়ার জন্য চালু মোবাইল নাম্বার দেবেন.
  • পর্চা অনুযায়ী জমির সঠিক বিবরণ লিখবেন

*ফর্ম জমা দেওয়ার পর যে রিসিভ কপিটা অফিস থেকে পাবেন সেটা যত্ন করে রাখবেন, পরবর্তীতে চেক পাওয়ার ক্ষেত্রে প্রয়োজন হবে |

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*